শিরোনাম:

Tue 06 February 2018 - 09:34pm

পর্যটন শিল্পকে অর্থনৈতিক খাত হিসেবে সিদ্ধান্ত নিয়েছে সরকার

Published by: super admin, banglarnari24.com

a01b9a444a21aa2d050018fecefdf74e.jpg

ইসলামী অর্থনীতির সম্ভাবনাকে তুলে ধরে ওআইসিভুক্ত দেশগুলোকে সহযোগিতা অংশীদারিত্বের ভিত্তিতে কাজ করার আহ্বান জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। সকালে কনফারেন্স অব ট্যুরিজম মিনিস্টারস এর উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে আহ্বান জানান তিনি। এসময় প্রধানমন্ত্রী দেশের পর্যটন শিল্পকে অর্থনৈতিক খাত হিসেবে উন্নত সমৃদ্ধ করতে বর্তমান সরকার নানা উদ্যোগ নিয়েছে বলেও জানান।

পর্যটন সম্ভাবনাময় বাংলাদেশে রয়েছে হাজার বছরের ইসলামিক ঐতিহ্য স্থাপনা শৈলী। যেসব বিশ্বব্যাপী পর্যটকদের আর্কষণ বাড়াতে রাখতে পারে অনন্য ভূমিকা


ধরণে ইসলামি পর্যটন শিল্প, সংস্কৃতি ঐতিহ্যকে বিকাশের লক্ষ্যে ঢাকা শুরু হয়েছে ইসলামি সহযোগি সংস্থা- ওআইসি ভুক্ত দেশগুলোর কনফারেন্স অব ট্যুরিজম মিনিস্টারস। সম্মেলনে সদস্যভুক্ত ৫২টি দেশের মন্ত্রী প্রতিনিধিরা অংশ নেন। মঙ্গলবার সকালে তিনদিনব্যাপী সম্মেলনের আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন করেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

সময় ইসলামিক অর্থনীতি পর্যটনের উন্নয়নে ওআইসিভুক্ত দেশগুলোর মধ্যে সরকারি বেসরকারি পর্যায়ে পারষ্পরিক সহযোগিতা জোরদারের আহ্বান জানান তিনি। 

প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘ইসলামিক অর্থনীতি একটা নতুন বিষয় হিসেবে যুক্ত হয়েছে। এটির বিকাশ অব্যাহত থাকবে এবং সারা বিশ্বে মুসলমানদের দ্বারা এটি পরিচালিত হবে। বিশ্বাসী ভোক্তা থাকার কারণে বিশ্বাসভিত্তিক পণ্য সেবা সম্প্রসারণে বিশাল সম্ভাবনা রয়েছে।

রোহিঙ্গা সংকটে বাংলাদেশের পাশে ওআইসিভুক্ত দেশগুলো থাকায় ধন্যবাদ জানিয়ে প্রধানমন্ত্রী বলেন, জাতিগত নিধনে পালিয়ে আসা রোহিঙ্গাদের বাংলাদেশ মানবিক কারণে আশ্রয় দিয়েছে।

তিনি বলেন, ‘ওআইসি ভুক্ত সহ জাতিসংঘের অন্যান্য দেশ, যারা এই সমস্ত মানুষের পাশে দাঁড়িয়েছে, তাদেরকে আমি আন্তরিক ধন্যবাদ কৃতজ্ঞতা জানাচ্ছি।

বর্তমান সরকার দেশের পর্যটন শিল্প বিকাশে নানা পদক্ষেপ নিয়েছে বলে উল্লেখ করে প্রধানমন্ত্রী বলেন, সরকার স্থানীয় আন্তর্জাতিক বিনিয়োগকারীদের জন্য আকর্ষণীয় প্রণোদনা সুযোগ-সুবিধা দিচ্ছে।

তিনি বলেন, ‘পর্যটনের টেকসই উন্নয়নের জন্য জাতীয় পর্যটন নীতি ২০১০ প্রণয়ন করেছি। জাতীয় শিল্প নীতি ২০১০- পর্যটন শিল্পকে দ্রুত বর্ধনশীল খাত হিসেবে আমরা চিহ্নিত করেছি। এবারের সম্মেলনের প্রতিপাদ্য পর্যটন উন্নয়নের মাধ্যমে অর্থনৈতিক গতিশীলতা বৃদ্ধি। আমি মনে করি, এটা অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ একটি প্রতিপাদ্য। যা প্রতিবেশি দেশগুলোর সঙ্গে পারষ্পারিক সম্পর্ক উন্নয়নে বিশেষভাবে ভূমিকা রাখবে। সদস্য দেশগুলোর মধ্যে পর্যটনসহ অর্থনৈতিক সাংস্কৃতিকসহ বিভিন্ন ক্ষেত্রে সুসম্পর্ক গড়ে তোলা অপরিহার্য।

এই সম্মেলন ইসলামী দেশগুলোর মধ্যে সহযোগিতা আন্তঃযোগাযোগ বাড়াবে বলে আশা প্রকাশ করেন শেখ হাসিনা         

মন্ত্যব্য করুন


পাঠকের মন্তব্য


Clarkriz
jimmiemit@mail.com


Very well spoken really. . [url=http://ventolinrx.fr/]Proventil Expiration[/url] [url=http://ciproguide.fr/]ciprofloxacin 500mg antibiotics[/url] [url=http://bactrimprice.com/]generic bactrim[/url] [url=http://f8sildenafil.com/]sildenafil[/url] [url=http://valtrex.fr/]valtrex medication[/url] [url=http://lisinoprilstore.com/]Lisinopril No Prescription 3 Day Delivery[/url] [url=http://motiliumsite.com/]Purchase Motilium Walgreens[/url]